• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৭:৪৩ পূর্বাহ্ন

বাউফলে মন্দিরে কোরআন শরীফ রাখার অভিযোগে এক ব্যক্তি আটক।।

নবআলো ডেস্কঃ / ৩৬১ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২২

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় উত্তর পালপাড়া কালীমন্দিরে কোরআন শরীফ রাখার অভিযোগে মো. ইদ্রিশ (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা। বুধবার দিবাগত রাত সারে ৩টার দিকে উপজেলার বগা ইউনিয়নের রাজনগড়র গ্রামের ৪নং ওয়ার্ডের উত্তরপালপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ইদ্রিশ বাখেরগঞ্জ উপজেলার নলুয়া গ্রামের মো. লেদু মিয়ার ছেলে।
স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার বগা ইউনিয়নের উত্তরপালপাড়া রাধাগোবিন্দ মন্দিরে তিন দিন ধরে রাত দিন বিরামহীন ভাবে নামযজ্ঞ অনুষ্ঠান চলতে ছিল। গত বুধবার ছিল অনুষ্ঠানের শেষ দিন। বুধবার রাত ৩টার দিকে অনুষ্ঠান চলাকালীন ইদ্রিশ নামে এক ব্যক্তি হাতে একটি একটি ব্যাগ নিয়ে অনুষ্ঠানে আসে। এক পর্যায়ে ইদ্রিশ অনুষ্ঠানের মাঠে রাধাগোবিন্দ মন্দিরে ঢোকতে চাইলে বাঁধা দেয় মন্দিরের পুরোহিত শুকরঞ্জন বৈরাগী। এরপড় ওই মন্দির থেকে চলে আসে ইদ্রিশ।
ওই দিনই রাত সারে ৩টার দিকে নামযজ্ঞ অনুষ্ঠন থেকে সঞ্জয় পাল নামে এক যুবক বাড়ি ফেরার সময় দেখতে পান রাধা গোবিন্দ মন্দিরের ৩শ মিটার দুরে কালীমাতা মন্দির থেকে ইদ্রিশ বের হচ্ছেন।
সঞ্জয় পাল বলেন, কালীমাতা মন্দির থেকে ওই ব্যক্তিকে দেখে আমি তাকে প্রশ্ন করি আপনি কেন মন্দির থেকে বের হলেন। তিনি তখন বলেন, সেজদা দিতে মন্দিরে গিয়েছিলাম, আপনি মুসলিম হয়ে মন্দিরে গেলেন, এ প্রশ্ন করলেই ইদ্রিশ দৌড় দিলে তিনি (সঞ্জয়) ডাক চিৎকার দিলে রাধাগোন্দি মন্দিরের লোকজন এসে ইদ্রিসকে আটক করে।
পড়ে স্থানীয়রা দেখতে পান মন্দিরে কালীমাতা প্রতিমার সামনে ঘটের ওপর একটি হাতব্যাগ যার ভিতরে রয়েছে কোরান শরীফ। এক পর্যায়ে তিনি (ইদ্রিশ) কোরান শরীফ রাখার বিষয়টি স্বিকার করে ভূল হয়েছে বলে জানান।
এরপড় পুলিশে খবর দিলে ভোর ৪টার দিকে পুলিশ এসে ইদ্রিশকে আটক করে বাউফল থানায় নিয়ে আসে।
উত্তরপালপাড়া রাধাগোবিন্দ মন্দিরের সভাপতি দিলীপ পাল বলেন, বাউফল হলো দেশের সম্প্রতীর উদাহরন। এমন ঘটনা ওই ব্যক্তি কার প্ররোচনায় করেছে তা প্রশাসনের গভীর ভাবে খতিয়ে দেখা উচিৎ।
বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, ধৃত ব্যাক্তির বাড়ি বাখেরগঞ্জ উপজেলার নলুয়া ইউনিয়নে। সে দুমকি উপজেলার আঙ্গারিয়া এলাকার কদমতলা আবাসনে থাকে। বুধবার বিকেলে বগা ওই গ্রামে যায়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। ইদ্রিশকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন জানানো হবে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
পটুয়াখালী পুলিশ সুপার মোহম্মদ শহীদুলস্নাহ জানান, এবিষয়ে কোন ছাড় দেওয়া হবে না। আমরা ঘটনার মূল তথ্য বের করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নিচ্ছি। বর্তমানে এলাকার পরিবেশ শান্ত্ম রয়েছে। মন্দির এলাকায় পুলিশি পাহার বসানো হয়েছে।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ বাউফল উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক অতুল চন্দ্র পাল বলেন, আমরা উপজেলা নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়কে ভীত না হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে।।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category