• বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ন

বাকেরগঞ্জে চলছে শ্বারদীয় দূর্গাপূজার প্রস্তুতি, ব্যাস্থ সময় পার করছে শিল্পীরা

Reporter Name / ২২৬ Time View
Update : রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২

উত্তম কুমার, বাকেরগঞ্জ : বরিশালের বাকেরগঞ্জ ৭৬টি পূজা মণ্ডপে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহত্তম শ্বারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। পূজার দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই মন্ডব গুলো তে ব্যাস্থ সময় পার করছে প্রতিমা শিল্পীরা।

এদিকে দিনরাত মাটি ও তুলি হাতে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন প্রতিমা শিল্পীরা।দুর্গাপূজায় প্রতিমা শিল্পীরা দুর্গাদেবী সহ অন্যান্য দেবী-দেবতার প্রতিমাগুলোতে নান্দনিক শিল্পকর্মে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করছেন। একেক জন একেক ভাবে তথা ব্যতিক্রম কিছু দেখাতে চাচ্ছে প্রতিমার সাজ-সজ্জা-অলংকরণে। এ যেন প্রতিমা শিল্পীদের এক অনন্য প্রতিযোগিতা। তবে পূজা মণ্ডপ পরিচালানকারীদের আর্থিক অবস্থার উপরও নির্ভর করছে প্রতিমার সৌন্দর্য বর্ধন ও অনুষ্ঠানের আয়োজন।

সরেজমিন পরিদর্শনে জানা গেছে, বাকেরগঞ্জ উপজেলার পৌরসভায়- ৬টি পূজা মণ্ডপ ও উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়নে-৭০টি পূজা মণ্ডপে শারদীয় দূর্গাপূজা উৎসব শুরু হবে। তাই সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে চলছে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা।দূর্গাপূজাকে উপলক্ষ করে পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ ব্যস্থ সময় পার করছেন।

এ বিষয়ে বাকেরগঞ্জ সার্বজনীন পূজা মণ্ডপ কমিটির সভাপতি বরুন কুমার সাহা বলেন, প্রতি বছর দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়। আমরা প্রতি বছর দুর্গাপূজায় প্রশাসনের নিরাপত্তাসহ সরকারি সবরকম সুযোগ-সুবিধা পাই। সার্বজনীন এ পূজা মণ্ডপে দুর্গাদেবীর সকল ভক্তবৃন্দের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি সবসময় দেখার মতো হয়। আর আনন্দ উৎসবে মুখরিত হয় পূজা মণ্ডপ চত্বর।

ভরপাশা দেবালয় পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক পংকজ কুমার দাস বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে আমরা বিভিন্ন সময় যথেষ্ট দান-অনুদান সহ প্রশাসনিক নিরাপত্তা পেয়ে থাকি।এছাড়া বাকেরগঞ্জের সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়রসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উপস্থিতি ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের সহযোগিতায় এ পর্যন্ত সফলতার সহিত বিভিন্ন পূজা উৎসব উদযাপন করে আসছি। আশা করছি এবারও সফলতার সহিত শারদীয় দুর্গাপূজা সম্পন্ন হবে।

বাকেরগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শংকর শীল জানান, জানান, ১ অক্টোবর শুরু হবে দুর্গাপূজা। শেষ হবে ৫ অক্টোবর। এবারও বাকেরগঞ্জ উপজেলার ৭৬টি মণ্ডপে দুর্গা পূজা উদ্‌যাপন করা হবে। গত দুই বছর করোনার কারণে বিধিনিষেধের মধ্য দিয়ে সীমিত পরিসরে উৎসবটি পালন করা হয়। তাই এবারের আয়োজন হচ্ছে বেশ ঘটা করে।

বাকেরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলাউদ্দিন মিলন বলেন, ‘আমরা ইতিমধ্যে পূজা উদ্‌যাপন সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনা করেছি। পূজার সময় প্রতিটা মন্দির ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানসহ বিভিন্ন এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে। এছাড়া কন্ট্রোলরুম খোলা, ২৪ ঘণ্টা সাইবার মনিটরিং, টহল পুলিশ দায়িত্ব পালনসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category