• সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৬:৫৭ পূর্বাহ্ন

বাউফলে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক’র উপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

Reporter Name / ১১৯ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২১ মার্চ, ২০২৩

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:
পটুয়াখালীর বাউফলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদারের উপর হামলা প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার কাগজির পুল এলাকা থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ইলিশ চত্তরে এসে সমাবেশ করে।
অপরদিকে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ স ম ফিরোজের অনুসারী একই দিন জামায়াত-বিএনপির সন্ত্রাসী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে উপজেলা সদরসহ ইউনিয়ন পর্যায়ে শান্তি মিছিলের ঘোষিত কর্মসূচি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপে শান্তি মিছিলের কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেন।
সহিংসতা এড়াতে উপজেলা সদরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে আজ সকাল থেকে বিপুল পরিমান র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়।
স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে আয়োজিত কর্মসূচিকে ঘিরে উপজেলা আওয়ামী লীগের দুটি পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এতে পুলিশসহ অন্তত ৩০ জন আহত হন। ওই সংঘর্ষের সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদারের উপর হামলার প্রতিবাদে আজ উপজেলা সদরে বিক্ষোভ কর্মসূচি দিয়েছে আবদুল মোতালেবের সমর্থিত নেকর্মীরা। গত রোববার তাঁরা ওই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ছেলে জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসানের নেতৃত্বে আজ সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বাউফল পৌরসভার কাগুজিরপুল এলাকা থেকে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে থানার পাশে ইলিশ চত্বরে এসে প্রতিবাদ সমাবেশ করে।
এতে বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি তালুকদার মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, মদনপুরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তফা, বাউফল সদর ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম, জেলা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রেজাউল কামাল ওরফে পল্টু প্রমূখ।
বক্তারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ওপর হামলার ঘটনাকে পরিকল্পিত এবং তাঁকে হত্যার উদ্দেশ্যে ওই হামলা হয়েছে বলে দাবি করেন। এঘটনায় বক্তারা আ স ম ফিরোজকে (এমপি) দায়ি করে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি করেন তারা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category