• মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১:৫৮ পূর্বাহ্ন

বাউফলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অফিস ফাঁকির অভিযোগ

Reporter Name / ৯৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ৪ জুলাই, ২০২৩

বাউফল(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি:
ঈদুল আযহার সরকারি ছুটি শেষে সরকারি অফিসের কার্যক্রম শুরু হয়েছে গত রোববার থেকে। অথচ সেই দিন থেকে আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত তিন কার্যদিবস এবং ঈদের আগের চার কর্মদিবস অফিস করেননি এক শিক্ষা কর্মকর্তা। এমন অভিযোগ পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. নাজমুল হকের বিরুদ্ধে।
অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে গিয়ে দেখা যায়,অফিসের একাডেমিক সুপার ভাইজার নুরনবী,হিসাব রক্ষক মো. জাহিদুর রহমানসহ অন্যরা উপস্থিত থাকলেও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজমুল হকের দেখা মেলেনি। তাঁর কক্ষ তালাবাদ্ধ অবস্থায় দেখা যায়। এ সময় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার কোথায় আছেন অফিসের হিসাব রক্ষক জাহিদুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্যার ছুটিতে আছেন বলে আমি জানি। নাম প্রকাশে অনুচ্ছুক ওই অফিসের এক কর্মচারী বলেন, মাধ্যমিক স্যার ঈদের আগের চার দিন অফিস করেননি। আবার ঈদের পর তিন দিন পর্যন্ত অফিসে আসেননি। উনি ছুটিতে আছেন কিনা তাও জানিনা। তিনি আরো বলেন, তিনি নিয়মিত অফিস করেন না। তিনি সপ্তাহে দুই দিন অফিস করেন। বাকী দিন গুলো অনুপস্থিত থাকেন। আবার যে দুই দিন উপস্থিত থাকেন সে দুই দিনের অধিকাংশ কাজও বাসায় বসে করে থাকেন।
এব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. নাজমুল হকের মুঠোফোনে(০১৭১১১১১৭৫৯) সাংবাদিকরা একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি কোন ফোন রিসিভ করেননি।
জেলা শিক্ষা অফিসার মুহাম্মদ মজিবর রহমান বলেন, নিয়মানুযায়ী লিখিতভাবে ছুটি নেওয়ার কথা থাকলেও তিনি মৌখিকভাবে আমার কাছ থেকে এক দিনের ছুটি নিয়েছেন। একদিনে ছুটি নিয়ে সাত দিন ছুটি কাটায় কীভাবে? খোঁজ নিয়ে দেখছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category