• মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ প্রকাশের জেরে স্কুলে শিক্ষার্থীর ভর্তিতে বাঁধা

Reporter Name / ৭৩ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২৩

নিউজ ডেস্ক :
পটুয়াখালীর বাউফলে বিদ্যালয়ের অনিয়মের বিরুদ্ধে নিউজ করায় সাংবাদিক পরিবারের সদস্য ওই বিদ্যালয়ে ভর্তিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন কর্তৃপক্ষ। এমন অভিযোগ উপজেলার কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে।
ওই ছাত্রের নাম মোঃ সাইমুন ইসলাম। অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম সুলতান আহমেদ। তিনি কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা বিষয়ক শিক্ষক।
জানাগেছে, ওই কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রশংসাপত্রে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের ব্যপারে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে তদন্ত শুরু হয় সংশ্লিষ্ট দপ্তরে। ওই প্রতিবেদনের জন্য শিশু সাংবাদিক মুনতাসির তাসরিপকে দায়ি করে বিদ্যালয় কতৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার সকালে মুনতাসিরের চাচা রহমত আলী (সুজন) তার ছেলে সাইমুনকে ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে নিয়ে ভর্তি করতে বিদ্যালয়ে আসেন। কিন্তু বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা শিক্ষক সুলতান আহমেদ তাকে ভর্তি করাননি।
এ ব্যপারে রহমত আলী বলেন, ‘আমি ওই স্কুলের অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রতিবেদনের ব্যপারে কিছু জানতাম না। আমার ভাইয়ের ছেলে এই স্কুলের ছাত্র ছিল, তাই আমি তার নাম বলেছি। আর তাতেই ক্ষেপে গেল সুলতান স্যার। কাগজপত্র ছুরে ফেলে দেন তিনি।
অভিযুক্ত শিক্ষক সুলতান আহম্মেদ বলেন, ‘আমাকে প্রধান শিক্ষক মুনতাসিরের কোন আত্মীয়-স্বজন ভর্তি করতে নিষেধ করেছেন। তাই আমি ভর্তি করিনি।
এব্যপারে প্রধান শিক্ষক ফেরদৌসী শিরিন বলেন, ‘ওই ছেলের সাথে কি হয়েছে আমি জানি না। এমন কোন নির্দেশ আমি দেইনি।’
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাজমুল হক বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category