• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন

তোফায়েল আহমেদ না থাকলে ৭ মার্চের তাৎপর্য জানতে পারতাম না- রাসেল আহমদ মিয়া

Reporter Name / ২৪ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ, ২০২৪

আশিকুর রহমান শান্ত
ভোলা প্রতিনিধি

জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক সচিব, ৬৯ এর গণঅভ্যর্থনে মহানায়ক বাংলাদেশ আওয়ামী রাজনীতির কিংবদন্তি, জননেতা তোফায়েল আহমেদ না থাকলে হয়তো ৭ই মার্চের ভাষণের তাৎপর্য সম্পর্কে আমরা কখনোই জানতে পারতাম না। ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে এ মন্তব্য করেন বোরহানউদ্দিন উপজেলার সফল ভাইস চেয়ারম্যান ও আসন্ন উপজেলা নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ রাসেল আহমেদ মিয়া।

বৃহস্পতিবার সকালে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে বোরহানউদ্দিন উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আলোচনা সভায় তিনি তার বক্তব্যের শুরুতে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
শ্রদ্ধা নিবেদন শেষ তিনি বলেন, জাতীয় নেতা জননেতা তোফায়েল আহমেদ এর কাছ থেকে আমরা জানতে পেরেছি, বঙ্গবন্ধু জানতেন ৭ মার্চের ভাষণের কারণে তাকে জেলে যেতে হবে, তারপরও তিনি ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) এক বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে ঘোষণা করলেন আমাদের যা কিছু আছে তা নিয়েই প্রস্তুত থাকো। মনে রাখবা রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরো দেবো এদেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো, ইনশাল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম। তার বলিষ্ঠ দূরদর্শী নেতৃত্বে দেশকে তিনি স্বাধীন করেছেন।

তিনি আরো বলেন, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি সামরিক জান্তার স্বৈরাচারী ও দমনমূলক শাসন থেকে মুক্তির সংগ্রামে পুরো বাঙালি জাতিকে ঝাঁপিয়ে পড়তে যাদুমন্ত্রের মতো কাজ করেছিল বঙ্গবন্ধুর সেই ৭ই মার্চ এর ভাষণ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা। ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে যদি হত্যা করা না হতো তাহলে আজকে বাংলাদেশ সিঙ্গাপুরের মত উন্নত থাকতো, বাংলাদেশের মানুষ বাহিরে রেমিটেন্সের জন্য যেতে হতো না, বরং বিদেশীরা বাংলাদেশে আসতো কাজের খোঁজে। ওরা মনে করেছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে বাংলাদেশকে অন্ধকারে ঠেলে দিবে। কিন্তু তারা জানে না বঙ্গবন্ধু তার সুযোগ্য উত্তরসূরী তৈরি করে গেছেন। আর সেই মহান নেতার সুযোগ্য কন্যা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতায় আজ বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়েছে।
পিতার হাতে স্বাধীনতা কন্যার হাতে দেশ কখনো পথ হারাবে না বাংলাদেশ।

বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রায়হান উজ্জামান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, বোরহানউদ্দিন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আসমত উল্যাহ মিয়া, এছাড়া আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, কৃষি কর্মকর্তা, বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন ফকির সহ আওয়ামীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category